ঢাকা ০৯:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
পীরগাছা উপজেলা অন্নদানগর ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত রংপুরে মিঠাপুকুর সমিতির ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত রংপুরে ঈদের কেনাকাটা করে ফেরার পথে বাস কেড়ে নিল ৩ জনের প্রাণ। রংপুর চেম্বার অব কর্মাসের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল মিঠাপুকুর উদ্দীপনের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত রংপুরে হাট ইজারা দরপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন রংপুরে হাট ইজারা দরপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন নবনিযুক্ত শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীকে বেরোবি উপাচার্যের অভিনন্দন রংপুরে শিশুদের আঁকা  ১শ চিত্রকলা নিয়ে প্রদর্শনী রংপুর মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি)’র পৃথক অভিযানে ১১ বোতল ফেন্সিডিল ও ২ কেজি গাঁজাসহ ৩ মাদককারবারী আটক

রংপুরে হাট ইজারা দরপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৭:২২:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪ ১০৩ বার পড়া হয়েছে

 

রংপুর মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কার্যালয়ে শঠিবাড়ী হাটের ইজারা নেয়ার দরপত্র (সিডিউল) ফেলতে গিয়ে সাবেক হাট ইজারাদার আমিনুর প্রধানের লোকজনের হাতে মারধর ও দরপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী দরপত্র আহ্বান কারীরা।

শনিবার ( ২ মার্চ) দুপুরে রিপোর্টার্স ক্লাব, রংপুর’ র মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনের লিখিত অভিযোগে মোফাক্ খায়রুল ইসলাম স্বপন বলেন, গত ২৯ ফেব্রুয়ারী, বৃহস্পতিবার, মিঠাপুকুর উপজেলার ঐহিত্যবাহী শঠিবাড়ী হাটের ১৪৩১ বঙ্গাব্দ সনের দরপত্র আহবানের শেষদিন হওয়ায় আমি ও আমার লোকজন সাদ্দাম হোসেন, সিফাত, তৈয়ব আলী, মাইকেল, দুলাল, রাজুসহ আরও কয়েকজন মিলে আনুমানিক দুপুর দেড়টায় মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে দরপত্র(সিডিউল) ফেলতে গেলে সাবেক শঠিবাড়ী হাটের ইজারাদার আমিনুর প্রধান, লালন ও সামিট অটোর স্বত্বাধিকারী জাহিদ গংদের সন্ত্রাসী বাহিনী আমাকেসহ অপর সিডিউল হোল্ডার আতিকুল ইসলাম ও তৈয়ব চৌধুরীকে মারধর করে জোর পূর্বক দরপত্র (সিডিউল) ছিনিয়ে নেয়।

এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা এবং  জেলা প্রশাসককে মোবাইলে ফোনে অবগত করেও কোনো প্রতিকার মেলেনি। বরং মিঠাপুকুর থেকে রংপুর শহর ফেরার পথে আমিনুর ও লালনের লেলিয়ে দেওয়া গুন্ডাবাহিনী আমাদের বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করেন। ফলে আমিও আমার লোকজন প্রাণভয়ে চলে আসি।

তিনি এই হামলার প্রতিবাদে সুষ্ঠু বিচারসহ ওই দরপত্র বাতিল করে পুনঃ দরপত্র দেয়ার জন্য সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জোর দাবী জানান তারা। এসময় উপস্থিত ছিলেন দরপত্র জমাদানকারী আতিকুল ইসলাম, তৈয়ব চৌধুরীসহ হামলার শিকার শওকত আলী, মেজবাহুল শাহ, নুরুজ্জামান ফরহাদ হোসেন।

তবে এঘটনার বিষয় জানতে মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাকে একাধিকবার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুর মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কার্যালয়ে শঠিবাড়ী হাটের ইজারা নেয়ার দরপত্র (সিডিউল) ফেলতে গিয়ে সাবেক হাট ইজারাদার আমিনুর প্রধানের লোকজনের হাতে মারধর ও দরপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী দরপত্র আহ্বান কারীরা।

শনিবার ( ২ মার্চ) দুপুরে রিপোর্টার্স ক্লাব, রংপুর’ র মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনের লিখিত অভিযোগে মোফাক্ খায়রুল ইসলাম স্বপন বলেন, গত ২৯ ফেব্রুয়ারী, বৃহস্পতিবার, মিঠাপুকুর উপজেলার ঐহিত্যবাহী শঠিবাড়ী হাটের ১৪৩১ বঙ্গাব্দ সনের দরপত্র আহবানের শেষদিন হওয়ায় আমি ও আমার লোকজন সাদ্দাম হোসেন, সিফাত, তৈয়ব আলী, মাইকেল, দুলাল, রাজুসহ আরও কয়েকজন মিলে আনুমানিক দুপুর দেড়টায় মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে দরপত্র(সিডিউল) ফেলতে গেলে সাবেক শঠিবাড়ী হাটের ইজারাদার আমিনুর প্রধান, লালন ও সামিট অটোর স্বত্বাধিকারী জাহিদ গংদের সন্ত্রাসী বাহিনী আমাকেসহ অপর সিডিউল হোল্ডার আতিকুল ইসলাম ও তৈয়ব চৌধুরীকে মারধর করে জোর পূর্বক দরপত্র (সিডিউল) ছিনিয়ে নেয়।

এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা এবং  জেলা প্রশাসককে মোবাইলে ফোনে অবগত করেও কোনো প্রতিকার মেলেনি। বরং মিঠাপুকুর থেকে রংপুর শহর ফেরার পথে আমিনুর ও লালনের লেলিয়ে দেওয়া গুন্ডাবাহিনী আমাদের বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করেন। ফলে আমিও আমার লোকজন প্রাণভয়ে চলে আসি।

তিনি এই হামলার প্রতিবাদে সুষ্ঠু বিচারসহ ওই দরপত্র বাতিল করে পুনঃ দরপত্র দেয়ার জন্য সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জোর দাবী জানান তারা। এসময় উপস্থিত ছিলেন দরপত্র জমাদানকারী আতিকুল ইসলাম, তৈয়ব চৌধুরীসহ হামলার শিকার শওকত আলী, মেজবাহুল শাহ, নুরুজ্জামান ফরহাদ হোসেন।

তবে এঘটনার বিষয় জানতে মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাকে একাধিকবার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

রংপুরে হাট ইজারা দরপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় : ০৭:২২:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪

 

রংপুর মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কার্যালয়ে শঠিবাড়ী হাটের ইজারা নেয়ার দরপত্র (সিডিউল) ফেলতে গিয়ে সাবেক হাট ইজারাদার আমিনুর প্রধানের লোকজনের হাতে মারধর ও দরপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী দরপত্র আহ্বান কারীরা।

শনিবার ( ২ মার্চ) দুপুরে রিপোর্টার্স ক্লাব, রংপুর’ র মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনের লিখিত অভিযোগে মোফাক্ খায়রুল ইসলাম স্বপন বলেন, গত ২৯ ফেব্রুয়ারী, বৃহস্পতিবার, মিঠাপুকুর উপজেলার ঐহিত্যবাহী শঠিবাড়ী হাটের ১৪৩১ বঙ্গাব্দ সনের দরপত্র আহবানের শেষদিন হওয়ায় আমি ও আমার লোকজন সাদ্দাম হোসেন, সিফাত, তৈয়ব আলী, মাইকেল, দুলাল, রাজুসহ আরও কয়েকজন মিলে আনুমানিক দুপুর দেড়টায় মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে দরপত্র(সিডিউল) ফেলতে গেলে সাবেক শঠিবাড়ী হাটের ইজারাদার আমিনুর প্রধান, লালন ও সামিট অটোর স্বত্বাধিকারী জাহিদ গংদের সন্ত্রাসী বাহিনী আমাকেসহ অপর সিডিউল হোল্ডার আতিকুল ইসলাম ও তৈয়ব চৌধুরীকে মারধর করে জোর পূর্বক দরপত্র (সিডিউল) ছিনিয়ে নেয়।

এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা এবং  জেলা প্রশাসককে মোবাইলে ফোনে অবগত করেও কোনো প্রতিকার মেলেনি। বরং মিঠাপুকুর থেকে রংপুর শহর ফেরার পথে আমিনুর ও লালনের লেলিয়ে দেওয়া গুন্ডাবাহিনী আমাদের বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করেন। ফলে আমিও আমার লোকজন প্রাণভয়ে চলে আসি।

তিনি এই হামলার প্রতিবাদে সুষ্ঠু বিচারসহ ওই দরপত্র বাতিল করে পুনঃ দরপত্র দেয়ার জন্য সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জোর দাবী জানান তারা। এসময় উপস্থিত ছিলেন দরপত্র জমাদানকারী আতিকুল ইসলাম, তৈয়ব চৌধুরীসহ হামলার শিকার শওকত আলী, মেজবাহুল শাহ, নুরুজ্জামান ফরহাদ হোসেন।

তবে এঘটনার বিষয় জানতে মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাকে একাধিকবার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুর মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কার্যালয়ে শঠিবাড়ী হাটের ইজারা নেয়ার দরপত্র (সিডিউল) ফেলতে গিয়ে সাবেক হাট ইজারাদার আমিনুর প্রধানের লোকজনের হাতে মারধর ও দরপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী দরপত্র আহ্বান কারীরা।

শনিবার ( ২ মার্চ) দুপুরে রিপোর্টার্স ক্লাব, রংপুর’ র মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনের লিখিত অভিযোগে মোফাক্ খায়রুল ইসলাম স্বপন বলেন, গত ২৯ ফেব্রুয়ারী, বৃহস্পতিবার, মিঠাপুকুর উপজেলার ঐহিত্যবাহী শঠিবাড়ী হাটের ১৪৩১ বঙ্গাব্দ সনের দরপত্র আহবানের শেষদিন হওয়ায় আমি ও আমার লোকজন সাদ্দাম হোসেন, সিফাত, তৈয়ব আলী, মাইকেল, দুলাল, রাজুসহ আরও কয়েকজন মিলে আনুমানিক দুপুর দেড়টায় মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে দরপত্র(সিডিউল) ফেলতে গেলে সাবেক শঠিবাড়ী হাটের ইজারাদার আমিনুর প্রধান, লালন ও সামিট অটোর স্বত্বাধিকারী জাহিদ গংদের সন্ত্রাসী বাহিনী আমাকেসহ অপর সিডিউল হোল্ডার আতিকুল ইসলাম ও তৈয়ব চৌধুরীকে মারধর করে জোর পূর্বক দরপত্র (সিডিউল) ছিনিয়ে নেয়।

এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা এবং  জেলা প্রশাসককে মোবাইলে ফোনে অবগত করেও কোনো প্রতিকার মেলেনি। বরং মিঠাপুকুর থেকে রংপুর শহর ফেরার পথে আমিনুর ও লালনের লেলিয়ে দেওয়া গুন্ডাবাহিনী আমাদের বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করেন। ফলে আমিও আমার লোকজন প্রাণভয়ে চলে আসি।

তিনি এই হামলার প্রতিবাদে সুষ্ঠু বিচারসহ ওই দরপত্র বাতিল করে পুনঃ দরপত্র দেয়ার জন্য সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জোর দাবী জানান তারা। এসময় উপস্থিত ছিলেন দরপত্র জমাদানকারী আতিকুল ইসলাম, তৈয়ব চৌধুরীসহ হামলার শিকার শওকত আলী, মেজবাহুল শাহ, নুরুজ্জামান ফরহাদ হোসেন।

তবে এঘটনার বিষয় জানতে মিঠাপুকুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাকে একাধিকবার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।