ঢাকা ০৮:৩৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
মিঠাপুকুরে চাঞ্চল্যকর খুন ও ডাকাতির মামলার আসামী গ্রেফতার, রংপুর পুলিশ সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলন রংপুরে সর্বজনীন পেনশন স্কিম বিষয়ে শ্রমিকনেতাদের সাথে মতবিনিময় সভা পবিত্র ঈদ উল আযহা উপলক্ষে কোরবানীর পশুর হাট, আইন-শৃঙ্খলা বিষায়ক মতবিনিময় সভা আগামী ১১ মে রংপুর  শ্যামাসুন্দরী খাল পুনরজ্জীবন ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নকরণ করা হবে। পীরগাছা উপজেলা অন্নদানগর ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত রংপুরে মিঠাপুকুর সমিতির ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত রংপুরে ঈদের কেনাকাটা করে ফেরার পথে বাস কেড়ে নিল ৩ জনের প্রাণ। রংপুর চেম্বার অব কর্মাসের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল মিঠাপুকুর উদ্দীপনের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত রংপুরে হাট ইজারা দরপত্র ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

প্রধানমন্ত্রীকে বরণে নতুন রুপে সেজেছে রংপুর

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:২৭:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩১ জুলাই ২০২৩ ৩০৪ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রংপুরের পুত্রবধূ আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমপিকে বরণে নতুন রুপে সেজেছে রংপুর। আর একদিন পরেই দীর্ঘ এক যুগ পর আগামী ২ আগষ্ট রংপুর নগরীর মাটিতে পা রাখবেন বঙ্গবন্ধু কন্যা। তাকে আলিঙ্গন করতে পুরো নগরী এখন প্রধানমন্ত্রী ব্যানার, ফেস্টুন আর তোরনের ছবিতে মুখোরিত। মাইকিংয়েও যেন এখন রব উঠেছে বঙ্গবন্ধুর কন্যা আসছে। প্রশাসনিক পর্যায়েও জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পুরো রংপুর শহর নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে।

সোমবার (৩১ জুলাই) দুপুরে জনসমাবেশস্থল জিলা স্কুল সম্মুখ, কাচারি বাজার, সার্কিট হাউস, জাহাজ কোম্পানি মোড়সহ রংপুর নগরী ঘুরে দেখা গেছে, আগামী ২ আগষ্ট প্রধানমন্ত্রী সফরকে ঘিরে প্রধানমন্ত্রীর ছবির সাথে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ নিজেদের ছবি দিয়ে তোরণ আর ফেস্টুনে ছেয়ে ফেলেছে।জনসমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজ চলছে জোরেশোরে। সড়কে লাগানো হয়েছে বহু মাইক। সবমিলিয়ে প্রস্তুতির প্রায় শেষ পর্যায়ে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে রংপুরে চলছে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগ। প্রতিদিন সরকারদলীয় নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে মহাসমাবেশ সফল করতে মিটিং মিছিল করছেন। অলিগলি চলছে মাইকিং আর উন্নয়নের গান। রংপুর বিভাগের প্রতিটি জেলা, উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটিগুলোও সক্রিয় হয়ে উঠেছে। সিটি করপোরেশনের থানা কমিটি থেকেও চলছে পাড়া-মহল্লায় গণসংযোগ।

আর এই জনসমাবেশেক সফল ও ঐতিহাসিক করতে এক সপ্তাহ থেকে রংপুরে অবস্থান করছেন আওয়ামী লীগের দুই সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন ও সুজিত রায় নন্দী। এছাড়াও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশিসহ অন্যান্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। তারাও প্রতিদিন বিভিন্ন প্রস্তুতি সমাবেশে দিচ্ছেন যোগ এবং সমাবেশকে সফল করতে নেতৃবৃন্দকে দিচ্ছেন পরিকল্পনা।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় ১০ লাখের বেশি মানুষের সমাগমের প্রস্তুতি নিয়েছে ক্ষমতাসীন দলটি। সরকারপ্রধানের বিভাগীয় জনসভায় রংপুর বিভাগের ৫৮টি উপজেলার প্রতিটি থেকে এসব মানুষ আনার প্রস্তুতি চলছে তাদের।

রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটি সদস্য ও এ্যাড. আনোয়ার ইসলাম বলেন, গত ১৪ বছরে বিভাগ, সিটি কর্পোরেশন, মহানগর পুলিশ, দৃশ্যমান ফোরলেন রাস্তাসহ রংপুরের ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন আওয়ামীলীগ সরকার এবং বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী ২ আগষ্ট দলের সভানেত্রীর আগমনকে ঘিরে আমরা দলীয়ভাবে ১০ লাখ লোকের সমাগমের প্রস্তুতিও গ্রহণ করেছি। এই কাজে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সার্বক্ষণিক আমাদের সাথে রয়েছেন এবং যাবতীয় দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন। এছাড়াও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আসার খবরে রংপুরে আওয়ামীলীগের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনাও বিরাজ করছে‌।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য

প্রধানমন্ত্রীকে বরণে নতুন রুপে সেজেছে রংপুর

আপডেট সময় : ০৭:২৭:১৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩১ জুলাই ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রংপুরের পুত্রবধূ আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমপিকে বরণে নতুন রুপে সেজেছে রংপুর। আর একদিন পরেই দীর্ঘ এক যুগ পর আগামী ২ আগষ্ট রংপুর নগরীর মাটিতে পা রাখবেন বঙ্গবন্ধু কন্যা। তাকে আলিঙ্গন করতে পুরো নগরী এখন প্রধানমন্ত্রী ব্যানার, ফেস্টুন আর তোরনের ছবিতে মুখোরিত। মাইকিংয়েও যেন এখন রব উঠেছে বঙ্গবন্ধুর কন্যা আসছে। প্রশাসনিক পর্যায়েও জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পুরো রংপুর শহর নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে।

সোমবার (৩১ জুলাই) দুপুরে জনসমাবেশস্থল জিলা স্কুল সম্মুখ, কাচারি বাজার, সার্কিট হাউস, জাহাজ কোম্পানি মোড়সহ রংপুর নগরী ঘুরে দেখা গেছে, আগামী ২ আগষ্ট প্রধানমন্ত্রী সফরকে ঘিরে প্রধানমন্ত্রীর ছবির সাথে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ নিজেদের ছবি দিয়ে তোরণ আর ফেস্টুনে ছেয়ে ফেলেছে।জনসমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজ চলছে জোরেশোরে। সড়কে লাগানো হয়েছে বহু মাইক। সবমিলিয়ে প্রস্তুতির প্রায় শেষ পর্যায়ে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে রংপুরে চলছে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগ। প্রতিদিন সরকারদলীয় নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে মহাসমাবেশ সফল করতে মিটিং মিছিল করছেন। অলিগলি চলছে মাইকিং আর উন্নয়নের গান। রংপুর বিভাগের প্রতিটি জেলা, উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটিগুলোও সক্রিয় হয়ে উঠেছে। সিটি করপোরেশনের থানা কমিটি থেকেও চলছে পাড়া-মহল্লায় গণসংযোগ।

আর এই জনসমাবেশেক সফল ও ঐতিহাসিক করতে এক সপ্তাহ থেকে রংপুরে অবস্থান করছেন আওয়ামী লীগের দুই সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন ও সুজিত রায় নন্দী। এছাড়াও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশিসহ অন্যান্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। তারাও প্রতিদিন বিভিন্ন প্রস্তুতি সমাবেশে দিচ্ছেন যোগ এবং সমাবেশকে সফল করতে নেতৃবৃন্দকে দিচ্ছেন পরিকল্পনা।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় ১০ লাখের বেশি মানুষের সমাগমের প্রস্তুতি নিয়েছে ক্ষমতাসীন দলটি। সরকারপ্রধানের বিভাগীয় জনসভায় রংপুর বিভাগের ৫৮টি উপজেলার প্রতিটি থেকে এসব মানুষ আনার প্রস্তুতি চলছে তাদের।

রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটি সদস্য ও এ্যাড. আনোয়ার ইসলাম বলেন, গত ১৪ বছরে বিভাগ, সিটি কর্পোরেশন, মহানগর পুলিশ, দৃশ্যমান ফোরলেন রাস্তাসহ রংপুরের ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন আওয়ামীলীগ সরকার এবং বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী ২ আগষ্ট দলের সভানেত্রীর আগমনকে ঘিরে আমরা দলীয়ভাবে ১০ লাখ লোকের সমাগমের প্রস্তুতিও গ্রহণ করেছি। এই কাজে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সার্বক্ষণিক আমাদের সাথে রয়েছেন এবং যাবতীয় দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন। এছাড়াও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আসার খবরে রংপুরে আওয়ামীলীগের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনাও বিরাজ করছে‌।